মঙ্গলবার - ১৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মঙ্গলবার - ১৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ১লা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

গুরুত্বপূর্ণ পদ থেকে বাদ পড়লেন ইলহান ওমর

ডেমোক্র্যাট ইলহান ওমরকে প্রতিনিধি পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ একটি কমিটি থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) ২১৮-২১১ ভোটে ওমরকে পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক কমিটি থেকে বাদ দেওয়া হয় বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। চার বছর আগের ‘সেমেটিকবিদ্বেষী’ মন্তব্যের জেরে তাকে কমিটি থেকে সরিয়ে দিয়ে, এখন নিম্নকক্ষের নিয়ন্ত্রক রিপাবলিকানরা।

সোমালিয়া থেকে শরণার্থী হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া ওমর কংগ্রেসের নিম্নকক্ষে থাকা হাতেগোনা মুসলিম প্রতিনিধিদের একজন। তিনি আফ্রিকায় জন্ম নেওয়া কংগ্রেসের একমাত্র প্রতিনিধিও। কংগ্রেসের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্যানেলের আফ্রিকা বিষয়ক সাব কমিটির শীর্ষ ডেমোক্র্যাট হওয়ার দৌড়েও ছিলেন তিনি।

তবে, এক রিপাবলিকান প্রস্তাবের পক্ষে, বিপক্ষে কোথাও ভোট না দিয়ে নিরপেক্ষ অবস্থান নেন। দুই বছর আগে তখন প্রতিনিধি পরিষদের নিয়ন্ত্রণকারী ডেমোক্র্যাটরা দুই রিপাবলিকানকে কমিটির দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছিল; রিপাবলিকানরা এবার তার বদলা নিলো বলেই মনে হচ্ছে।

ওমরকে সরিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে ২০১৯ সালের কিছু মন্তব্যকে টানছেন রিপাবলিকানরা। তবে সেসব মন্ত্যব্যের জন্য ক্ষমাও চেয়েছিলেন মিনেসোটা থেকে টানা তিনবার নির্বাচিত ডেমোক্র্যাট প্রতিনিধি।

বৃহস্পতিবার তাকে কমিটি থেকে বাদ দেওয়ার ভোটের পরপরই প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট নেতা হাকিম জেফরি নতুন চাল চেলেছেন। হাকিম জেফরি বলেছেন, তিনি ওমরকে বাজেট কমিটিতে রাখতে চান, যেখান থেকে তিনি ‘ডানপন্থী উগ্রবাদের বিপক্ষে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ রক্ষা করতে পারবেন’।

২০১৯ সালের যেসব মন্তব্যের জন্য ওমরকে দুষছে রিপাবলিকানরা তার মধ্যে একটি টুইটও আছে, যাতে তিনি লিখেছিলেন, “সবই বেঞ্জামিনের সন্তানকে নিয়ে।” মার্কিন রাজনীতিতে ইসরায়েলের সমর্থকরা যতটা না নীতি দ্বারা, তার চেয়ে বেশি টাকার কারণে তাড়িত বলে ওমর ওই টুইটে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ ওঠে।

১৭৭৬ সালে স্বাধীনতার ঘোষণা এবং ১৭৮৭ সালের মার্কিন সংবিধানে স্বাক্ষরকারী, ‘প্রতিষ্ঠাতা জনকের’ সম্মান অর্জন করে নেওয়া বেঞ্জামিন ফ্রাঙ্কলিনের প্রতিকৃতি ছাপা আছে মার্কিন ১০০ ডলারের নোটে।

এ নিয়ে বিতর্কে রিপাবলিকান মাইক ললার বলেছেন, “কথা গুরুত্বপূর্ণ, তর্ক গুরুত্বপূর্ণ। এটা ক্ষতি করতে পারে। কংগ্রেসউইম্যানকে (ওমর) তার কথা ও কাজের জন্য জবাবদিহিতার আওতায় আনা উচিত।”

তবে ওমর ও অন্য ডেমোক্র্যাটদের ভাষ্য, যেসব মন্তব্যের জন্য জবাবদিহিতা চাওয়া হচ্ছে, সেগুলো করা হয়েছে কয়েক বছর আগে; তাছাড়া ওমর সেসব পোস্ট সরিয়েও নিয়েছেন এবং পরে ক্ষমাও চেয়েছেন।

ডেমোক্র্যাটদের মধ্যে প্রগতিশীল বলে পরিচিত ‘দ্য স্কোয়াডের’ সদস্য ওমর কমিটি থেকে বাদ পড়ার আগে দেওয়া এক আবেগঘন বক্তৃতায় বলেছেন, “কমিটিতে না থাকলেও আমার কণ্ঠ, আমার নেতৃত্বকে চাপা দিয়ে রাখা যাবে না।”

ওমর ছাড়াও আলেক্সান্ডার ওকাসিও কর্টেজ, আয়ানা প্রেসলি ও রাশিদা তালিবকে ডেমোক্র্যাট ‘দ্য স্কোয়াডের’ সদস্য ধরা হয়, ডেমোক্র্যাট পার্টির ভেতরে ক্রমশই তাদের জনপ্রিয়তা ও প্রভাব বাড়ছে।

ভোটের আগে সাংবাদিকদের জেফরি বলেছিলেন, ডেমোক্র্যাটরাও ইলহান ওমরের ‘বেঞ্জামিন’ সংক্রান্ত মন্তব্যের নিন্দা জানিয়েছিল।

তিনি বলেন, “স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা আছে আমাদের। ইলহান ওমর ক্ষমা চেয়েছিলেন। ভুল থেকে শিখবেন এবং ইহুদি সম্প্রদায়ের সঙ্গে ‘সেতু গড়ার’ ইঙ্গিতও দিয়েছিলেন তিনি। এটা (ভোটে বাদ দেওয়া) জবাবদিহিতা নয়। এটা রাজনৈতিক প্রতিশোধ,”

রিপাবলিকান স্পিকার কেভিন ম্যাককার্থি এর আগে ডেমোক্র্যাট আডাম শিফ ও এরিক সোয়ালওয়েলকেও প্রতিনিধি পরিষদের গোয়েন্দা তথ্য বিষয়ক পার্মানেন্ট সিলেক্ট কমিটির দায়িত্বে আনতে রাজি হননি। এই দুই ডেমোক্র্যাট রিপাবলিকান সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn